আপনিও সহজেই শিখুন C Programming ( Part – 5)

Posted: জুলাই 17, 2010 in প্রোগ্রামিং
Tags: , , , ,

লিখেছেনঃ কায়সার আহমেদ

“বিসমিল্লাহ হির রহমানির রহিম”

প্রতিটি সি প্রোগ্রাম এক গুচ্ছ এক্সপ্রেশন বা স্টেটমেন্টের সমন্বয়ে গঠিত। প্রতিটি এক্সপ্রেশন আবার কতগুলো প্রতীক, সংকেত, ভেরিয়েবল তথা টোকেন, কীওয়ার্ড, অপারেটর, অপারেন্ড ইত্যাদির সমন্বয়ে গঠিত।

টোকেনঃ- টোকেন বলতে বুঝায় সিম্বল বা প্রতীক। প্রতিটি সি প্রোগ্রাম কতগুলো স্টেটমেন্ট নিয়ে গঠিত। স্টেটমেন্টসমূহকে আবার এক বা একাধিক ওয়ার্ড এবং ক্যারেক্টারের সমষ্টি। সি প্রোগ্রামে ব্যবহৃত এরুপ ওয়ার্ড এবং ক্যারেক্টারসমূহকে সম্মিলিতভাবে টোকেন বলা হয়। যেমনঃ কীওয়ার্ড একটি টোকেন, এটি প্রোগ্রাম লেখার জন্য ব্যবহার করা হয়, int, char, float এগুলো হল উদাহরন। আইডেনিটফায়ার ও একটি টোকেন, এটি ভেরিয়েবল, ফাংশন স্ট্রাকচার ইত্যাদি নামকরনের জন্য ব্যবহার হয়,  I, J, main ইত্যাদি।

কীওয়ার্ডঃ- কীওয়ার্ড হল প্রোগ্রামরে জন্য সংরক্ষিত বিশেষ শব্দ। সি ভাষায় ব্যবহৃত কতগুলো কীওয়ার্ড ইতিমধ্যে উল্লেখ করা হয়েছে। যেমনঃ int, char, float ইত্যাদি। এগুলোর প্রত্যেকটি একটি নিদির্ষ্ট অর্থ বহন করে এবং প্রোগ্রামে একটি নিদির্ষ্ট কার্য সম্পাদন করে। কীওয়ার্ড সমূহ ব্যবহারের একটি সুনিদির্ষ্ট নিয়ম আছে। এর সমান্য ব্যতিক্রম হলে প্রোগ্রা ভুল ফলাফল দিতে পারে।

auto          donble        for        register      switch

break        _ds          goto        return      typedet

case         else         huge     _savereges      union

cdecl       enum          if        _seg      unsigned

char         _es           int       short        void

const       extern       interrupt     signed    volatile

continue   _export      _loadds     _ss          ইত্যাদি।

আইডেনিটফায়ারঃ-  প্রোগ্রামে ব্যবহৃত ভেরিয়েবল, ফাংশন, এ্যারে, পয়েন্টার, স্ট্রাকচার, ক্লাস, অবজেক্ট ইত্যাদিকে আইডেন্টিফায়ার নামে অবহিত করা হয়।

অপারেটর, অপারেন্ড ও এক্সপ্রেশনঃ- সি ভাষায় গাণিতিক এবং যৌক্তিক কাজ নিয়ন্ত্রণ করার জন্য কতগুলো বিশেষ ক্যারেক্টারকে বলা হয় অপারেটর (operator)। Operand বা ডেটা ব্যবহার করে বিভিন্ন কর্ম সম্পাদানের জন্য অপারেটর ব্যবহার হয়। কীবোর্ড অপারেটরকে টোকেন হিসেবে গ্রহণ করে। কতগুলো অপারেন্ড, অপারেটর এবং কনস্ট্যান্টের সামঞ্জস্যপূর্ণ উপস্থাপনকে এক্সপ্রেশন বা বণর্না বলা হয়। উদাহরনসরুপ বলা যায়, Average = -(Value1+Value2)/2; একটি এক্সপ্রেশন। এখানে Average, Value1, Value2 অপারেন্ড; =, +. -, / অপারেটর এবং 2 কনস্ট্যান্ট। উল্লেখ্য, কোন এক্সপ্রেশনে যে কোন দুটি অপারেটর কখনও পাশাপাশি থাকতে পারে না, প্রয়োজনে মাঝে বন্ধনী ব্যবহার করতে হয়। আর প্রত্যেকটি অপারেটর কেবল একটি বা দুটি অপারেন্ড বা কনস্যান্ট নিয়ে কাজ করে।

Source

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s